মেয়েদের ফুটবলে আরেক ইতিহাস বাংলাদেশের

0
132

একটির পর একটি সাফল্য ধরা দিচ্ছে মেয়েদের বয়সভিত্তিক ফুটবলে। গত মাসে ঢাকায় বাংলাদেশের মেয়েরা এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্বে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে উঠে দ্বিতীয় রাউন্ডে।

রবিবার ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে জিতলো প্রথম সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা। ফাইনালে নেপালকে ১-০ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

গত ডিসেম্বর ঢাকায় আরেকটি টুর্নামেন্টে প্রথম চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে বিজয়ের পতাকা উড়িয়েছিলেন মারিয়া-আঁখিরা।

গত আগস্টে এই থিম্পুতে ট্রফি হারিয়ে এসেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দল ভারতের কাছে ফাইনালে হেরে। তবে তার চেয়ে বড় টুর্নামেন্ট সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ জিতে সেই হতাশা কিছুটা হলেও কাটিয়ে উঠলো গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

গ্রুপ পর্বে এই নেপালকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে সেমিফাইনালে ভারতকে হারিয়ে শিরোপার লড়াইয়ে ওঠা নেপালকে সমীহ করতে হয়েছে মেয়েদের। মৌসুমী, কৃষ্ণারা এ ম্যাচে নিজেদের মতো করে খেলতে পারেননি। ভুল পাসের ছড়াছড়ি ছিল। কোনো সমন্বয় ছিল না ছোটনের দলের।

নেপাল ফাইনালেই খেললো সবচেয়ে ভালো ম্যাচ। জিততে বাংলাদেশের মেয়েদের অনেক বেগ পেতে হয়েছে। কাঙ্খিত গোলটি আসে ৪৯ মিনিটে। অধিনায়ক মিসরাত জাহান মৌসুমীর ফ্রি-কিক থেকে গোল করেন মাসুরা পারভীন।

গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের মেয়েরা ১৭-০ গোলে পাকিস্তানকে এবং ২-১ গোলে নেপালকে হারায়। সেমিফাইনালে স্বাগতিক ভুটানকে ৪-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে লাল-সবুজ জার্সিধারী মেয়েরা। বাংলাদেশ অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েই ঘরে ফিরছে ভুটান থেকে।

ফাইনালে গোল না পেলেও বাংলাদেশের মিসরাজ জাহান স্বপ্না হয়েছেন সর্বোচ্চ গোলদাতা। তিনি টুর্নামেন্টে ৮ গোল করেছেন।